যথাযোগ্য মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পালিত হচ্ছে সৌভাগ্যের রজনী

যথাযোগ্য মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে রোববার (২১ এপ্রিল) রাতে সারাদেশে পালিত হচ্ছে মুসলিম সম্প্রদায়ের সৌভাগ্যের রজনী পবিত্র শবে বরাত। আর এই শবে বরাত উপলক্ষে মসজিদগুলোতে ঢল নেমেছে মুসল্লীদের।

জাতীয় মসজিদ বায়তুল মুকাররমসহ বিভিন্ন মসজিদে ইবাদত-বন্দেগির জন্য আসা মুসল্লিদের জমায়েত বেড়েছে। মহান আল্লাহর রহমত ও নৈকট্য লাভের আশায় নফল নামাজ আদায়, কোরআন তিলাওয়াত, জিকির, ওয়াজ ও মিলাদ মাহফিলসহ নানা ইবাদত-বন্দেগির মধ্য দিয়ে রাতটি অতিবাহিত করবেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা।মাগরিবের পর থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে জাতীয় বায়তুল মোকাররমে আসতে শুরু করেন মুসল্লিরা। এছাড়া বিভিন্ন এলাকার মসজিদগুলোতেও মুসল্লিরা ইবাদতে মশগুল হয়ে মহান সৃষ্টিকর্তার দরবারে প্রার্থনা করছেন।

পবিত্র শবে বরাত উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। বাণীতে তারা বিশ্বের মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনার পাশাপাশি বাংলাদেশের জনগণের সুখ-সমৃদ্ধি কামনা করেন। রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে দেশবাসীসহ সমগ্র মুসলিম উম্মাহকে আন্তরিক মোবারকবাদ জানান।

মহিমান্বিত এ রজনীতে মুসলিম উম্মাহর সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমসহ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার মসজিদগুলোতে নামাজিরা বিশেষ মোনাজাত ও দোয়া মাহফিলে শামিল হয়েছেন। রোববার মাগরিবের নামাজের পর থেকেই শবে বরাতের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে। বিভিন্ন মসজিদে শবে বরাতের তাৎপযের্র ওপর বায়ন চলছে।

সবশেষ ফজর নামাজের মধ্য দিয়ে শেষ হবে শবে বরাতের আনুষ্ঠানিকতা।সারাবাংলা