ময়মনসিংহের ভালুকায় বসতঘরের মেঝে খুঁড়ে যুবকের লাশ উদ্ধার

  ময়মনসিংহের ভালুকায় বসতঘরের মেঝে খুঁড়ে জসিম উদ্দিন (২৫) নামে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে মডেল থানা পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার উরাহাটি পশ্চিমপাড়া গ্রামে।

 পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ওই গ্রামের সুলাতান মিয়ার নেশাখোর ছেলে জসিম উদ্দিন নেশার টাকার জন্য প্রায়ই বাবা-মাসহ পরিবারের লোকদের মারধর করে আসছিলো। গত সোমবার রাতে টাকার জন্য তার মা সুফিয়া খাতুনকে মারধর করলে পিতা সুলতান মিয়াসহ পরিবারের লোকজনের সাথে ঝগড়া হয়। বুধবার বিকেলে গ্রামের লোকজন বিষয়টি ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বাদশাকে জানালে তিনি পুলিশকে জানান। রাতেই পুলিশ ওই বাড়িতে যায় কিন্তু বাড়ির কোন লোকজন না
জসিম উদ্দিন (২৫)

থাকায় ঘরের তালা ভেঙে কোন আলামত না পেয়ে চলে আসে। বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিশ আবারো ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘরের ভেতর টেবিলের নিচে মেঝের অংশ কিছুটা ভিজা ও লোপাপোছা অবস্থায় দেখতে পেয়ে সন্দেহ হয়। পরে মাটি খুঁড়ে গলায় প্লাষ্টিকের দড়ি পেঁচানো অবস্থায় জসিম উদ্দিনের লাশ উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়।

স্থানীয়রা আরো জানান, জসিম টেম্পু চালক এবং সে প্রায়ই নেশা খেয়ে পরিবারের লোকদের নির্যাতণ করতো। সোমবার ঘটনার পর জসিমের স্ত্রীকে এক বছরের শিশু সন্তানসহ তার বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দেয়া হয় এবং বুধবার সকালে জসিমের পিতা সুলতান মিয়া ঢাকায় অবস্থানরত তার ভাতিজা জাহাঙ্গীরকে ঘটনাটি জানায়। পরে জাহাঙ্গীর নিহত জসিমের বড় ভাই আমীরকে অবহিত করলে সে ইউপি চেয়ারম্যানকে ঘটনাটি জানায়।
 লাশ উদ্ধারকারী ভালুকা মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মাজহারুল ইসলাম জানান, লাশের গায়ে আঘাতের কোন চিহৃ পাওয়া যায়নি, কিন্তু গালায় প্লাষ্টিকের দড়ি পেঁচানো ছিলো। লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা প্রস্তুতি চলছে, তবে কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

ভালুকার খবর