মেসির হ্যাটট্রিকে বার্সার বিশাল জয়

একে পর এক গোল করে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন লিওনেল মেসি। দারুণ ছন্দে থাকা এই ফরোয়ার্ড এবার করলেন হ্যাটট্রিক। তার একটি গোলে অবদান রাখা লুইস সুয়ারেস নিজেও করলেন এক গোল। দুই তারকার নৈপুণ্যে রিয়াল বেতিসকে তাদেরই মাঠে হারিয়ে শিরোপার পথে আরেক ধাপ এগিয়ে গেল কাতালান ক্লাবটি।

লা লিগার ম্যাচে রোববার রাতে ৪-১ গোলে জিতেছে শিরোপাধারীরা।

গত নভেম্বরে দুই দলের সবশেষ দেখায় কাম্প নউয়ে ৩-৪ গোলে বেতিসের কাছে হেরেছিল বার্সেলোনা। মধুর প্রতিশোধ নিল এরনেস্তো ভালভেরদের দল। জয় তুলে নিল প্রতিপক্ষের মাঠে।

বেতিসের মাঠে শুরু থেকেই আক্রমণ-প্রতি আক্রমণে জমে ওঠে ম্যাচ। বার্সেলোনার বিপক্ষে সমানে সমানে লড়াই করে পয়েন্ট তালিকার আট নম্বরে থাকা দলটি। তবে ফিনিশিংয়ে ব্যর্থতা ভুগিয়েছে বেতিসকে। খুব বেশি সুযোগ তৈরি করতে না পারা বার্সেলোনাকে প্রথমার্ধে ২-০ গোলে এগিয়ে নেন মেসি।

অষ্টাদশ মিনিটে দুর্দান্ত এক ফ্রি-কিকে বল জালে পাঠান বার্সেলোনা অধিনায়ক। চলতি আসরে সরাসরি ফ্রি-কিক থেকে এটি তার চতুর্থ গোল। ৪১তম মিনিটে মেসির স্কয়ার পাসে দারুণ সুযোগ পেয়েছিলেন সুয়ারেস। মাত্র আট গজ দূর থেকে অরক্ষিত উরুগুয়ের এই স্ট্রাইকার গোলরক্ষক বরাবর শট নিয়ে দলকে হতাশ করেন।

যোগ করা সময়ে ব্যবধান বাড়ান মেসি। সতীর্থের দিকে না তাকিয়েও দারুণ এক ব্যাকহিলে তাকে খুঁজে নেন সুয়ারেস। ছুটে গিয়ে নিখুঁত শটে বল জালে পাঠান আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। ৬৩তম মিনিটে আর হতাশ হতে হয়নি এই স্ট্রাইকারকে। মাঝমাঠে বল পেয়ে দারুণ গতিতে এগোনোর পথে বেতিসের দুই খেলোয়াড়কে ফাঁকি দেন সুয়ারেস। আরেক খেলোয়াড়ের স্লাইড এড়িয়ে ডান পায়ের শটে পোস্ট ঘেঁষে জাল খুঁজে নেন তিনি।

৮২তম মিনিটে লোরেন মোরনের গোলে ব্যবধান কমায় বেতিস। ডি-বক্সে আলবা পা পিছলে পড়ে গেলে বল পেয়ে যান দিয়েগো লাইনেস। তিন ডিফেন্ডারকে এড়িয়ে বল দেন অরক্ষিত মোরনকে। দারুণ শটে জাল খুঁজে নেন তিনি। ৮৫তম মিনিটে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন মেসি। ইভান রাকিতিচের কাছ থেকে বল পেয়ে দারুণ এক চিপে গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে জার খুঁজে নেন তিনি।

চলতি আসরে তার এটি ২৯তম ও সব মিলিয়ে মৌসুমে ৩৯তম গোল। যোগ করা সময়ে হতে পারতো আরেকটি; তবে পোস্টের বাধায় চতু্র্থ গোল পাননি মেসি।

স্পেনের শীর্ষ লিগে মেসির এটা ৩৩তম আর ক্যারিয়ারে ৫১তম হ্যাটট্রিক।

২৮ ম্যাচে ২০ জয় আর দুই ড্রয়ে ৬৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান আরো মজবুত করেছে বার্সেলোনা।