ভালুকায় পন্যসামগ্রীর দাম নিয়ন্ত্রণে মাঠে নেমেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত

নিজস্ব প্রতিনিধি, ত্রিশাল প্রতিদিন:: ময়মনসিংহের ভালুকায় নিত্যপ্রয়োজনীয় পন্যসামগ্রীর দাম নিয়ন্ত্রণে গতকালের ন্যায় আজও মাঠে ছিলো উপজেলা সহকারী কমিশণার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রোমেন শর্মার নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

গতকাল নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রোমেন শর্মা ভালুকা ও সিডষ্টোর বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে কয়েকজন ব্যবসায়িকে পন্যের মূল্য অধিক দামে ভোক্তাদের কাছে বিক্রির দায়ে জরিমানাসহ বাজার মনিটরিং করার পর সাধারন মানুষ এটাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন এবং গোটা উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নের বাজারগুলোতে এমন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার জোর দাবি জানালে আজ বিকালে মল্লিকবাড়ী বাজারে ভালুকা উপজেলা সহকারী কমিশণার( ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রোমেন শর্মার নেতৃত্বে ইউনিয়ন পর্যায়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালান।

এসময় মল্লিকবাড়ী বাজারে ভ্রাম্যমাণ মোবাইল কোর্ট প্রবেশের সাথে সাথেই পেঁয়াজ ৬০ টাকা থেকে ৫০ টাকা হয়ে গেল, রসুন ১২০ থেকে কমে হয়ে গেল ১০০ টাকা। আজ মল্লিকবাড়ী বাজারে সাপ্তাহিক হাটের দিন ছিলো। পরে পুরো বাজারে দোকান মনিটরিং করে ব্যবসায়ি সকলকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অনুরোধ জানান নিত্যপ্রয়োজনীয় পন্যসামগ্রী কেউ যাতে অধিক দামে ভোক্তাদের কাছে বিক্রি না করে এবং প্রতিটি দোকানে পন্যের বাজার মূল্য তালিকা টানাতে বলেন। এসময় ভ্রাম্যমাণ মোবাইল কোর্টে মডেল থানার পুলিশ ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকতাবৃদ্ধ উপস্থিত ছিলেন।

পরে বিকেলে উপজেলার কাঁচিনা ইউনিয়নের বাটাজোড় বাজারে উপজেলা সহকারী কমিশণার( ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রোমেন শর্মার নেতৃত্বে আরেকটি ভ্রাম্যমাণ মোবাইল কোর্ট অভিযান চালায়। এসময় বাজার মনিটরিং কালে মেসার্স হালিম ষ্টোর এন্ড থ্রি ব্রাদার্স বানিজ্যালয়ের মালিক সফিকুল ইসলামকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানানো হয় তিনি প্রতিদিনই তার দোকানে নিত্যপ্রয়োজনীয় পন্যসামগ্রীর বাজার দর তালিকা টানিয়ে ফেইসবুকে আপলোড করেন এবং ন্যায্য মূল্যে পন্য বিক্রয় করেন।

কাঁচিনা অভিযান শেষে সন্ধায় হবিরবাড়ীর স্কয়ার মাষ্টারবাড়িতে ভ্রাম্যমাণ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে দুইজন পেয়াজ ও রসুন ব্যবসায়িকে অতিরিক্ত মূল্যে পন্য বিক্রির জন্য ৫০০০ হাজার টাকা করে মোট ১০,০০০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এবং একজন মূদি দোকানদারকে চালের বাজার মূল্যের চেয়ে অধিকদামে চাল বিক্রির দায়ে ২০,০০০ হাজার টাকা জরিমান করে প্রাথমিক অবস্থায় বাজারের সকল ব্যবসায়িকে সতর্ক করা হয় যাতে কেউ দ্রব্যসামগ্রী অধিক দামে ভোক্তাদের কাছে বিক্রি না করেন। এসময় বাজার মনিটরিং কালে পেয়াজের মূল্য ৬০-৬৫ টাকা থেকে ৪৫ টাকায় বিক্রি করে ব্যবসায়িরা।

অভিযানের সময় উপস্থিত জনতা ভালুকার প্রতিটি নাগরিকের প্রতি সুদৃষ্টি রাখেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রোমেন শর্মা তার জন্য সাধারন মানুষ ওনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এবং প্রতিনিয়ত ভ্রাম্যমাণ মোবাইল কোর্ট বাজারে অব্যাহত রাখতে বলেন।

ভালুকা উপজেলা সহকারী কমিশণার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রোমেন শর্মা ত্রিশাল প্রতিদিনকে বলেন, আজ বিকাল থেকে ভালুকার মল্লিকবাড়ী বাজার, কাঁচিনার বাটাজোর বাজার, হবিরবাড়ীর স্কয়ার মাষ্টারবাড়ি বাজারে সন্ধা পর্যন্ত ভ্রাম্যমাণ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। এসময় একজন মূদি দোকানিকে চাল বেশি দামে বিক্রির দায়ে ২০,০০০হাজার টাকা ও দুইজন পেয়াজ-রসুন ব্যবসায়িকে ৫০০০ হাজার টাকা করে মোট ৩০,০০০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয় এবং সকল বাজারে ব্যবসায়িদের পন্যসামগ্রীর ন্যায্য মূল্য ভোক্তাদের কাছ থেকে রাখার নির্দেশ করা হয়।

তিনি আরো বলেন,গোটা ভালুকা উপজেলায় বাজার মনিটরিং এ মাঠে নেমেছে প্রশাসন। পর্যায়ক্রমে প্রতিটি ইউননিয়নের বাজারগুলোতে অভিযান পরিচালনা করা হবে।