বিমান ভেঙে মৃত মার্কিন সেনা, নিখোঁজ ৫ জন

নিখোঁজদের খোঁজে জাপানি জাহাজ।—ছবি রয়টার্স।

জাপানের সমুদ্রের উপরে মাঝ-আকাশে জ্বালানি ভরার সময়ে ভেঙে পড়ল মার্কিন সেনার দু’টি বিমান। মৃত্যু হল ‘মেরিন’ বাহিনীর এক পাইলটের। জীবিত উদ্ধার করা গিয়েছে আর এক পাইলটকে। তাঁর অবস্থা স্থিতিশীল। অন্য বিমানটিতে থাকা পাঁচ জনই নিখোঁজ। তাঁদের সন্ধানে যৌথ তল্লাশি শুরু করেছে জাপান ও আমেরিকার বাহিনী। জাপানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী তাকেশি আইওয়ায়া আজ এ কথা জানিয়েছেন।

ঘটনাস্থল দক্ষিণ-পশ্চিম জাপান উপকূলের মুরোতো অন্তরীপ থেকে প্রায় একশো কিলোমিটার দূরে। কাল স্থানীয় সময় রাত ২টো নাগাদ উড়ন্ত অবস্থায় ট্যাঙ্কার-বিমান কে সি-১৩০ থেকে জ্বালানি ভরার কথা ছিল একটি এফএ/১৮ যুদ্ধবিমানের। সেই সময়ে দু’টি বিমানই একসঙ্গে সমুদ্রে ভেঙে পড়ে। কী ভাবে দু’টি বিমানই ভেঙে পড়ল, তা নিয়ে বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেয়নি কোনও দেশই।

তবে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানানো হয়েছে, মাঝ আকাশে সম্ভবত মুখোমুখি চলে এসেছিল বিমান দু’টি। বিমান দু’টির ধ্বংসস্তূপ খুঁজে বার করতে প্রথমে একটি হেলিকপ্টার পাঠানো হলেও ঘন কুয়াশা আর বৃষ্টির জন্য কিছুই করা যায়নি বলে জাপানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সূত্রে জানানো হয়েছে।

পরে নিখোঁজ সেনাদের খোঁজে নেমেছে মোট ন’টি বিমান এবং তিনটি জাহাজ। এফএ/১৮ যুদ্ধবিমানটির দুই পাইলটকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে তাঁদের মধ্যে এক জনের মৃত্যুর খবর ঘোষণা করা হয়। ট্যাঙ্কারের যাত্রীদের খোঁজ নেই।

 জাপানে প্রায় ৫০ হাজার মার্কিন সেনা মোতায়েন রয়েছেন। আর এই ধরনের রুটিন মহড়ায় দুর্ঘটনা আগেও ঘটেছে। গত নভেম্বরেই একটি মার্কিন যুদ্ধবিমান দক্ষিণ জাপানের ওকিনাওয়া দ্বীপে ভেঙে পড়েছিল। তবে তার দুই যাত্রীকেই জীবিত উদ্ধার করা হয়।