ইসরায়েলের কঠোর সমালোচনায় ফ্রান্স ও জার্মানি

ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরে নতুন করে ইসরায়েলি দখলদারিত্ব সম্প্রসারণ পরিকল্পনার কঠোর সমালোচনা করেছে ফ্রান্স ও জার্মানিসহ চার দেশ। দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা বলেছেন, এই পরিকল্পনা থেকে সরে না এলে সম্পর্কের ক্ষেত্রে ইসরায়েলকে এর ফল ভোগ করতে হবে। বুধবার এক প্রতিবেদেনে এ খবর জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

আগামী ১ জুলাই থেকে ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড দখল করে পশ্চিম তীরে ইহুদি বসতি স্থাপনের পরিকল্পনা করছে ইসরায়েল। একইসঙ্গে কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ ফিলিস্তিনের জর্ডান ভ্যালি-ও দখলের চক্রান্তের মেতেছে দেশটি। ইসরায়েল ঘেঁষা হিসেবে পরিচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কথিত মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনায় এসব ভূখণ্ডে ইসরায়েলি দখলদারিত্বের স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছিল।

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে ১ জুলাই থেকে নতুন দখলদারিত্বের কোনও ঘোষণা এখন পর্যন্ত আসেনি। তবে দেশটির কর্মকর্তারা সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, বিষয়টি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন ইসরায়েলের নিরাপত্তা সংস্থাগুলোর প্রধানরা। মঙ্গলবার এক ভিডিও কনফারেন্সের পর দেওয়া বিবৃতিতে এ পরিকল্পনার নিন্দা জানান ফ্রান্স, জার্মানি, মিসর ও জর্ডানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা।

বিবৃতিতে বলা হয়, ১৯৬৭ সালে অধিকৃত ফিলিস্তিনি অঞ্চলগুলোতে নতুন করে যে কোনও দখলদারিত্ব আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন। এটি শান্তি প্রক্রিয়ার ভিত্তি নষ্ট করে দেবে।

চার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বিবৃতিতে বলা হয়, ১৯৮৭ সালের সীমানার কোনও পরিবর্তন মেনে নেওয়া হবে না। দুই দেশের সমঝোতা ব্যতিরেকে এ ধরনের পরিবর্তন গ্রহণযোগ্য নয়। সূত্র: আল জাজিরা।