পাকিস্তানে আইপিএল সম্প্রচার বন্ধ

বর্তমানে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে দা-কুমড়া অবস্থা। কাশ্মীর হামলার পর মুখোমুখি অবস্থানে ভারত-পাকিস্তান। আর রাজনীতি থেকে শুরু করে উত্তাল দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দেশের ক্রিকেটাঙ্গন। এই সম্পর্কের বৈরিতার জেরে কয়েকদিন আগে ভারতে সদ্য সমাপ্ত পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) সম্প্রচার বন্ধ করে দেয় দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। এতে কিছুটা ক্ষতির মুখে পরে পাকিস্তান।

ভারতের এমন সিদ্ধান্তের বদলা হিসেবে এবার পাকিস্তানে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) সম্প্রচার নিষিদ্ধ করল পাক সরকার। আইপিএল শুরু পর সবশেষ ২০০৮ আসরে আইপিএলে খেলেন পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা। নিজ দেশের কোনো ক্রিকেটার না থাকায় স্বাভাবিকভাবেই আইপিএল নিয়ে পাকিস্তানিদের তেমন আগ্রহ না থাকলেও সম্প্রচার হত। তাতে আর্থিকভাবেও লাভবান হয় ভারত। তবে এবার আর সেই সুযোগ থাকছে না।

বিষয়টি নিয়ে পাকিস্তানের দাবি, সেদেশে আইপিএল সম্প্রচার না করলে এর দর্শক কমবে। তাতে ভারত ক্ষতিগ্রস্ত হবে। পাক তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ আহমেদ চৌধুরীর ভাষায় পিএসএলের সময়ে আমাদের ক্রিকেট ও খেলোয়াড়দের হেয় করেছে ভারতীয় সরকার ও বিভিন্ন কোম্পানি। এরপর কেমন করেই আমরা আমাদের দেশে আইপিএল সম্প্রচার হতে দিতে পারি?

ফাওয়াদ আহমেদ চৌধুরী বলেন, আমরা সবসময়ই খেলাধুলা ও রাজনীতি আলাদা রাখতে চেয়েছি। কিন্তু ভারত চায়নি। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আর্মি ক্যাপ পরে খেলতে নেমেছে টিম ইন্ডিয়া। এর বিরুদ্ধে আইসিসি কোনো পদক্ষেপ নেয়নি।

তিনি বলেন, পাকিস্তানে আইপিএল সম্প্রচার না করাই উচিত। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হবে ভারতই। তিনি যোগ করেন, আমাদের মনে হয়; আমরা যদি পাকিস্তানে আইপিএল সম্প্রচার না করি তাহলে ওরা অর্থনৈতিকভাবে অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি লিগে উদ্বোধনী ম্যাচে লড়বে চেন্নাই সুপার কিংস ও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা পর মাঠে গড়াচ্ছে আইপিএলের দ্বাদশ আসর। অথচ এই সময়ে এসে অর্থনৈতিকভাবে অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে আসরটি।