পাঁচ যুবক মিলে দুই কিশোরীকে গণধর্ষণ ,গ্রেপ্তার ০২

ঠাকুরগাঁওয়ে পাঁচ যুবক মিলে দুই কিশোরীকে গণধর্ষণ
ঠাকুরগাঁওয়ে পাঁচ যুবক মিলে দুই কিশোরীকে গণধর্ষণ

ঠাকুরগাঁওয়ে পাঁচ যুবক মিলে দুই কিশোরীকে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটিয়েছে। এ ঘটনায় দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। দেখা করার কথা বলে ডেকে নিয়ে ওই দুই কিশোরীকে ধর্ষণ করেন অভিযুক্ত যুবকরা। ভুক্তভোগী এক কিশোরী ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলায় সুতার ফ্যাক্টরিতে চাকরি করতেন।

অভিযুক্তরা হলেন- পীরগঞ্জ উপজেলার সেনুয়া বানিয়াপাড়া গ্রামের আলতাফুর রহমানের ছেলে নয়ন ইসলাম, একই গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে ফরিদ হোসেন, ফজলুর রহমানের ছেলে সেলিম ও ভোমরাদহ চিলাছাপা গ্রামের ওসমান আলীর ছেলে সবুজ এবং সেনুয়া নাপিতপাড়া গ্রামের হরিদাস চন্দ্র শীলের ছেলে হিরেন চন্দ্র শীল।

জানা যায়, ময়মনসিংহে চাকরি করার সময় পীরগঞ্জ উপজেলার নয়ন ইসলামের সঙ্গে রানীশংকৈল উপজেলার এক কিশোরীর পরিচয় হয়। সেই সুবাদে নয়ন গত সোমবার কিশোরীকে দেখা করতে বলে। পরে ওই কিশোরী আরেক কিশোরীকে নিয়ে রানীশংকৈল থেকে পীরগঞ্জে আসে এবং পূর্ব চৌরাস্তায় তাদের দেখা হয়। এক পর্যায়ে কৌশলে নয়ন ও তার চার সহযোগী তাদেরকে সবুজের বাড়িতে নিয়ে যায়।প্রথমে সেখানে ও পরে আখ খেতে নিয়ে নয়ন ইসলাম, ফরিদ হোসেন, সেলিম, সবুজ ও হিরেন চন্দ্র শীল পালাক্রমে ভুক্তভোগীদের ধর্ষণ করে। পরদিন মঙ্গলবার অসুস্থ অবস্থায় ভুক্তভোগীরা বাড়ি ফিরে পরিবারের সদস্যদের সব জানায়। এরপর সেই দিন রাতেই এক কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে পীরগঞ্জ থানায় ওই পাঁচ যুবকের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

এ বিষয়ে পীরগঞ্জ থানার ওসি খায়রুল আলম জানান, দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কিশোরীদের ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

বাংলা/এনএস