নজরুল জয়ন্তী হলোনা এবার এই মাঠে

ঐতিহ্যবাহী নজরুল একাডেমী মাঠ
ঐতিহ্যবাহী নজরুল একাডেমী মাঠ

ফজলে রশীদঃ আমি জানিনা, এমন কেউ আছে যারা জানেনা, কবি কাজী নজরুল ইসলামের বাল্যস্মৃতি বিজড়িত স্থান হিসেবে ত্রিশাল তথা ময়মনসিংহবাসী ধন্য। ত্রিশালবাসী বিনাস্বার্থে কোটি কোটি টাকার জমি উৎসর্গ করেছেন কবির নামে। যে জমির উপর আজ কবির নামে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। যে বছর ত্রিশালে জাতীয় পর্যায়ে নজরুল জন্ম জয়ন্তী পালিত না হতো আমরা কবিপ্রেমী ত্রিশালবাসী কঠোর আন্দোলন সংগ্রামে জড়িয়ে পড়তাম।

যাই হউক আমরা কবিকে নিয়ে শতভাগ দাবী পূরণ করতে সক্ষম হয়েছি। আমরা ঘটা করে এবার কবির ১২১তম জন্ম জয়ন্তী পালন করতে না পারলেও বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনে ঘরোয়া পরিবেশে নজরুল জন্ম জয়ন্তী পালিত হয়েছে। কোন কারনে এক সময় জয়ন্তীর আয়োজন কম হলে প্রশাসনকে ধিক্কার জানাতাম, আজ সে প্রশাসনকে জয়ন্তী না হওয়ার কঠোর মনোভাবের জন্য ধন্যবাদ জানাতে হচ্ছে। নিচে কবির বাল্য বিদ্যাপিঠ দরিরামপুর হাইস্কল বর্তমানে নজরুল একাডেমী নামে বহুল পরিচিত। আজ যে জনশুন্য নজরুল একাডেমীর মাঠটি দেখছেন এ মাঠেই প্রতি বছর ২৫মে থেকে ২৭মে পর্যন্ত লাখো নারী পুরুষের ঢল নামতো।

কিন্তু আজ সে মাঠ লোকশুন্য মরু। প্রতি বছরের ন্যয় এবার এ মাঠির ধূলো পাস্পর্শ করেনি দেশ তথা বিশ্ব বরেণ্য কবি, সাহিত্যিক, শিল্পী ও সাংবাদিকদের। এবার আর সংস্কৃতি নিয়ে আর আমাদের ব্যস্ততা নেই। কবিকে শ্রদ্ধা ভরে লালন করছি মননে এবং ঘরের কোণে।