ত্রিশালে জিবিএস রোগে আক্রান্ত ছেলে,বাঁচাতে মায়ের আকুতি

গুলেন ব্যারি সিনড্রোম (জিবিএস) রোগে আক্রান্ত শেখ সাদী
গুলেন ব্যারি সিনড্রোম (জিবিএস) রোগে আক্রান্ত হয়েছেন ময়মনসিংহের ত্রিশালের পিতৃহীন ১৮ বছর বয়সি শিক্ষার্থী শেখ সাদী। ব্যয়বহুল ও মরণব্যাধি এ রোগ থেকে সাদীকে বাঁচাতে এগিয়ে আসার আঁকুতি তার পরিবারের।
পরিবারিক সূত্র জানায়, উপজেলার পৌর শহরের ৯নং ওয়ার্ড দরিরামপুর গ্রামের বাসিন্দা মৃত শাহজাহান সিরাজের একমাত্র ছেলে শেখ সাদী। বাবার মৃত্যুর পর সরকারী নজরুল কলেজ থেকে এইচ.এস.সি পাশ করে ডিগ্রিতে পড়াশুনার পাশাপাশি দেখাশুনা করত বাবার রেখে যাওয়া একমাত্র সম্বল  ফ্রেক্সিলোডের দোকানটি। দোকানের স্বল্প আয় দিয়ে চলতো মা ও একমাত্র ছোট বোনের লেখাপড়া আর অন্যান্য খরচ।
৮ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার সকালে হটাৎ সাদীর হাত-পা অবশ ও ব্যথা অনুভব করলে তার মা শিরিন আক্তার দ্রুত তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। অবস্থার অবনিতি হলে চিকিৎসক তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করে। শনিবার সকালে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকরা তার পরিবারের লোকজনকে ঢাকা আগারগাঁও ন্যাশনাল ইনষ্টিটিটিউট অব নিউরো সাইন্স হাসপাতালে দ্রুত সময়ের মধ্যে ভর্তির পরামর্শ দেন।
পরে ওইদিন বিকেলে তাকে ওই হাসপাতালে ভর্তি করে তার পরিবার। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান সাদী গুলেন ব্যারি সিনড্রোম রোগে আক্রান্ত হয়েছে। চিকিৎসক আরো জানান, ওই রোগের চিকিৎসার জন্য ২১ দিনের অধিক সময় সাদীকে ভর্তি রেখে পর পর ৫টি ভ্যাকসিন দিতে হবে যার মূল্য সাড়ে ৭ লাখ টাকা। বর্তমানে সে ওই হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
ব্যয়বহুল এই চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করা সাদীর বিধবা মা শিরিন আক্তারের পক্ষে কোনোভাবেই সম্ভব না। তাই সাদীকে বাঁচাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতা কামনা করেন তার মা। পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানদের প্রতি এগিয়ে আসার আকুল আহবান জানান। সেইসঙ্গে দেশবাসীর কাছে দোয়া কামনা করেন মা শিরিন আক্তার ও স্বজনরা।