ত্রিশালের মাদক ব্যবসায়ি কুমিল্লায় আটক,সাথে ২০০০ পিছ ইয়াবা জব্দ।

ত্রিশাল প্রতিদিন ডেস্ক : ময়মনসিংহ ত্রিশাল রামপুর ইউনিয়নের বীররামপুরের আলোচিত মাদক ব্যবসায়ী মান্নান দুই হাজার পিচ ইয়াবা সহ কুমিল্লা ডিবি পুলিশের হাতে আটক হয়।

গতকাল কুমিল্লা ডিবি পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিকাল পাঁচ ঘটিকার সময় কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানাধীন, জোড়কানন সাকিনস্থ মুচি বাড়ীর সামনে পাকা রাস্তায় গাড়ী চেক করার সময়  সিলভার রংয়ের প্রাইভেটকার (রেজি নং-ঢাকা মেট্রো-গ-৩৭-০৩২০) গাড়ীটিকে  আটক করে। আটকের সময় গাড়ীর ভিতরে থাকা মাদক ব্যবসায়ী আসামী  মোঃ আব্দুল মান্নান ও গাড়ীর ড্রাইভার মোঃ সুরুজ আলীকে আটক করে। এয়ার টাইট প্যাকেটের ভিতরে রক্ষিত ৬০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং ব্যবহৃত প্রাইভেটকার গাড়ীটি তল্লাশী করিয়া গাড়ীর ভিতরে ইস্টিয়ারিং বক্সে অভিনব কায়দায় ফিটিং অবস্থায় ০৭টি নীল রংয়ের এয়ার টাইট প্যাকেটের ভিতরে রক্ষিত, ১৪০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, সর্ব মোট ২০০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করেন। এ সময় মান্নানের ব্যবহৃত ০৪টি মোবাইল ফোন ও মোঃ সুরুজ আলী এর ব্যবহৃত ০১টি মোবাইল ফোন সহ আসামীদের ব্যবহৃত প্রাইভেটকার গাড়ীটি জব্দ করা হয়।

ত্রিশাল ও ঢাকায় মাদকের প্রায় ১২ থেকে১৩ টি  মামলার তালিকা ভূক্ত আসামী মান্নান। অসাধু পুলিশ কর্মকর্তা ও মানবাধিকার কর্মীদের সাথে সু-সম্পর্ক রেখে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে নিজের একাধিক গাড়ীতে মাদক দ্রব্য সামগ্রী (ইয়াবা, হিরোইন, ফেন্সিডিল, মদ ও গাঁজা) ত্রিশাল সহ আশে পাশের এলাকায় দীর্ঘদিন যাবৎ রমরমা বানিজ্য করে আসছে। গত ১২ সেপ্টম্বর ২০১৯ইং ত্রিশাল থানা পুলিশের অভিযানে এস.আই কাইয়ূম অভিযান পরিচালনা করে মান্নানের সহযোগী আতাহার আলীকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

মান্নান ও মিজান সহ তার সহযোগীদের গ্রেফতারের দাবীতে ইউপি চেয়ারম্যান সহ সংশ্লিষ্ট এলাকার সাধারণ মানুষ অনতিবিলম্ভে এসব মাদক  ব্যবসায়ী গ্রেফতারের দাবীতে প্রশাসনের নিকট দরখাস্ত প্রদান করেন। মান্নান চিহ্নিত বহুল আলোচিত মাদকের আসামী হওয়া সত্ত্বেও তার আখরায় অভিযান পরিচালনা করায় ত্রিশাল থানায় কর্মরত এস.আই কাইয়ূমের বিরুদ্ধে বিভাগীয় পুলিশ কমিশনার বরারব অভিযোগ প্রদান করেন।

মাদক ব্যবসায়ী মান্নানকে নিয়ে রিপোর্ট প্রকাশের পর কুমিল্লার ডিবি পুলিশ গুরুত্ব দিয়ে তার ব্যক্তিগত প্রাইভেট কার ও দুই হাজার পিচ ইয়াবা সহকারে আটক করতে সক্ষম হয়।