কাতার থেকে স্বাস্থ্যসেবা খাতে উপকৃত হতে পারে বাংলাদেশ

কাতারে করোনায় আরেক বাংলাদেশির মৃত্যু

তামিম রায়হান:: কাতারে গত ২৪ ঘন্টায় স্বাস্থ্যনমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৩,৭১০ জনের। এঁদের মধ্যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১৫৩ জন। এ পর্যন্ত কাতারে আক্রান্তের সংখ্যা ২,২১০ জন। এঁদের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৬ জনের। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৭৮ জন।

হিসাবটা তুলে ধরা আমার উদ্দেশ্য নয়। বরং কাতার প্রতিদিন সাড়ে তিন হাজারের বেশি মানুষের স্বাস্থ্য নমুনা পরীক্ষা করতে পারছে, এর ফলে দ্রুততম সময়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের শনাক্ত করা যাচ্ছে। পাশাপাশি কাতারে আক্রান্তদের তুলনায় মৃত্যুহার খুব স্বাভাবিক, যা বাংলাদেশের বেলায় উদ্বেগজনক।

কাতারের স্বাস্থ্যসেবা খাত আগের যে কোনো সময়ের চেয়ে এখন অনেক বেশি তৎপর। কাতারের বন্ধুপ্রতীম দেশ বাংলাদেশ চাইলে কাতার থেকে স্বাস্থ্যসেবা খাতে নানাভাবে উপকৃত হতে পারে।

কাতারে বর্তমানে বাস করছেন প্রায় সাড়ে চার লাখ বাংলাদেশি। কাতারে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে অনেক বাংলাদেশিও রয়েছেন। এছাড়া সর্তকতামূলক সরকারি তত্ত্বাবধানে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন আরও অনেক বাংলাদেশি। কাতার কর্র্তৃপক্ষের এই মানবিক সেবার জন্য প্রবাসী বাংলাদেশিরা নিঃসন্দেহে কৃতজ্ঞ।

আজ বুধবার কিছুক্ষণ আগে মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট কাতারের আমিরের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন। এমন অনেক দেশের রাষ্ট্রপ্রধানদের সঙ্গে কাতার কর্তৃপক্ষের নিয়মিত যোগাযোগ ও সহযোগিতামূলক সম্পর্ক অব্যাহত রয়েছে, তবে বাংলাদেশ কেন নয়!

আমরা চাই, আমাদের দেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি কাতারের আমিরকে ফোন করবেন এবং তাঁকে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাবেন এই দুঃসময়ে বাংলাদেশি প্রবাসীদের পাশে থাকার জন্য। বাংলাদেশের পক্ষ থেকে অন্তত যদি স্বাস্থ্যনমুনা পরীক্ষার উপকরণ চেয়েও সহযোগিতার আহ্বান জানানো হয়, তবে কাতার নিশ্চিতভাবে বিশেষ সহযোগিতায় এগিয়ে আসবে। এই দুঃসময়ে কাতার-বাংলাদেশ সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় হোক, এই প্রত্যাশা আমাদের।