ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় মার্কিন ক্ষয়ক্ষতি প্রকাশে সাংবাদিকের অ্যাকাউন্ট বন্ধ

ত্রিশাল প্রতিদিন অনলাইন ডেস্কঃইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ইরাকের আইন আল-আসাদ বিমান ঘাঁটির সাতটি ভবন ধ্বংস ও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এসব ভবনে মার্কিন সামরিক বাহিনীর সদস্যরা বসবাস করেন। কৃত্রিম উপগ্রহের ছবিতে এসব ধ্বংসযজ্ঞের ছবি দেখা গেছে বলে বার্তা সংস্থা সিএনএন এর খবরে বলা হয়েছে।

ইরাকি সেনাবাহিনী জানিয়েছে, বুধবার ভোরে ইরাকের জোটের ঘাঁটিগুলিতে চালিত ২২ টি ক্ষেপণাস্ত্রের মধ্যে ১৭ টি আল-আসাদ বিমান ঘাঁটিতে আঘাত করেছিল। এই ঘাঁটিতে মার্কিন সেনা রয়েছে। অবকাঠামোর অন্তত তিনটি কাঠামো বিমান ব্যবস্থাপনা হ্যাংগার হিসেবে ব্যবহার করা হয়। কিছু কিছু ভবন পুরোপুরি অদৃশ্য হয়ে গেছে। তাদের কিছু অংশ রয়ে গেছে।

মার্কিন সেনা ঘাঁটিতে ইরানের করা ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ক্ষয়ক্ষতি ও আহতরা ইসরায়েলের একটি হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন বলে ‍টুইটারে পোস্ট দিয়েছিলেন সাংবাদিক জ্যাক খূরি। পরে তার অ্যাকাউন্টটি বন্ধ করেছে টুইটার কর্তৃপক্ষ।

 ইরানি সংবাদমাধ্যম পার্স টুডে জানায়, জ্যাক খূরি নামের ওই সাংবাদিক তার টুইটার পোস্টে লেখেন, দৈনিক হারেৎজ থেকে পাওয়া তথ্য অনুসারে আইন আল-আসাদ বিমান ঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় আহত ২২৪ জন মার্কিন সেনাকে তেল আবিবে নেওয়া হয়েছে। জ্ঞাত সূত্র অনুসারে, এসব সেনাকে তেল আবিবের সুরাস্কি মেডিকেল সেন্টার হাসপাতাল চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

জ্যাক খূরি ওই পোস্টে আরও লেখেন, হাসপাতালের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়কে আশ্বস্ত করেছেন যে, হাসপাতালে ডাক্তার ও স্টাফরা মার্কিন সেনাদের সর্বোচ্চ সেবা দেবে।

বুধবার ওই পোস্ট দেন জ্যাক খূরি। এরপর মার্কিন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটার তার পোস্টটি মুছে দেয়। শুধু তাই নয়, জ্যাক খূরির টুইটার অ্যাকাউন্টটিও বন্ধ করে দিয়েছে টুইটার কর্তৃপক্ষ।

বুধবার ভোরে ইরানের ইসলামিক বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি ইরাকের আনবার প্রদেশের আইন আল-আসাদ বিমানঘাঁটি এবং ইরবিলের একটি মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায়। এতে ৮০ মাকির্ন সেনা নিহত হয়েছে বলে দাবি করে ইরান। তবে মার্কিন সরকারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে এ হামলায় তাদের কোনো সৈন্যই মারা যাননি।